• শনিবার, ২০ এপ্রিল ২০২৪, ০১:০৯ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম:
সোশ্যাল মিডিয়ায় সবচেয়ে বেশি সময় কাটায় যে দেশের মানুষ বঙ্গবন্ধু হাই-টেক সিটিতে বাংলাদেশের প্রথম ক্লাউড ডেটা সেন্টার: মেঘনা ক্লাউডের কার্যক্রম শুরু নোবিপ্রবির সঙ্গে তুরস্কের পামুক্কালে বিশ্ববিদ্যালয়ের সমঝোতা স্মারক (MOU) স্বাক্ষর সেনবাগে ভোর রাতে ঘরে ঢুকে স্ত্রী,কন্যা ও শাশুড়িকে কুপিয়ে জখম বেগমগঞ্জ পার্ক থেকে অস্ত্র’সহ কিশোরগ্যাংয়ের ৫সদস্য আটক এইচ এম ইব্রাহিম এমপিকে জনশক্তি ও কর্মসংস্থান মন্ত্রণালয়ের স্থায়ী কমিটির সভাপতি নির্বাচিত করায় গণসংবর্ধনা বেগমগঞ্জে বাবার জানাজা শেষে ছেলের মৃত্যু  নুর নবী টিপু বিএ (অনার্স) এমএ কে উপজেলা চেয়ারম্যান হিসেবে দেখতে চায় বেগমগঞ্জবাসী পেমেন্ট খাতের শীর্ষস্থানীয় প্রতিষ্ঠানসমূহকে সম্মাননা দিল ডিজিটাল পেমেন্টে বিশ্বের শীর্ষস্থানীয় প্রতিষ্ঠান ভিসা ট্রাস্ট সফট বিডি: বাংলাদেশে একটি বিশ্বস্ত আইটি সেবা প্রদানকারী প্রতিষ্ঠান

অতিরিক্ত সোশ্যাল মিডিয়া ব্যবহারে আপনার যে সব ক্ষতি হতে পারে

আমার নোয়াখালী ডেস্ক
আমার নোয়াখালী ডেস্ক
আপডেটঃ : শুক্রবার, ৫ মে, ২০২৩
অতিরিক্ত সোশ্যাল মিডিয়া ব্যবহারে আপনার যে সব ক্ষতি হতে পারে

অতিরিক্ত সোশ্যাল মিডিয়া ব্যবহারে আপনার যে সব ক্ষতি হতে পারে

আজকের ডিজিটাল যুগে, সোশ্যাল মিডিয়া প্ল্যাটফর্মগুলি দৈনন্দিন জীবনের সর্বব্যাপী অংশ হয়ে উঠেছে। যদিও সোশ্যাল মিডিয়া বন্ধু, পরিবার এবং সম্প্রদায়ের সাথে সংযোগ করার একটি চমৎকার উপায় হতে পারে, অত্যধিক ব্যবহার ব্যক্তিদের উপর বিভিন্ন ক্ষতিকারক প্রভাব ফেলতে পারে। এখানে অত্যধিক সামাজিক মিডিয়া ব্যবহারের সবচেয়ে উল্লেখযোগ্য নেতিবাচক পরিণতিগুলির মধ্যে কয়েকটি রয়েছে:

আসক্তি: সোশ্যাল মিডিয়া অত্যন্ত আসক্ত হতে পারে, এবং যে ব্যক্তিরা এটিতে খুব বেশি সময় ব্যয় করে তাদের ব্যবহার নিয়ন্ত্রণ করা কঠিন হতে পারে। যেকোনো আসক্তির মতো, এটি নেতিবাচক পরিণতির দিকে নিয়ে যেতে পারে, যেমন দায়িত্ব অবহেলা, উৎপাদনশীলতা হ্রাস এবং জীবনের প্রতি সন্তুষ্টি হ্রাস।

মানসিক স্বাস্থ্য: গবেষণায় দেখা গেছে যে সামাজিক মিডিয়ার অত্যধিক ব্যবহার খারাপ মানসিক স্বাস্থ্যের সাথে যুক্ত, যার মধ্যে উদ্বেগ, বিষণ্নতা এবং একাকীত্বের অনুভূতি রয়েছে। সোশ্যাল মিডিয়া FOMO এর অনুভূতি তৈরি করতে পারে (নিখোঁজ হওয়ার ভয়), যার ফলে ব্যক্তিরা তাদের জীবনকে অন্যদের সাথে তুলনা করতে পারে এবং অপর্যাপ্ত বোধ করতে পারে। অধিকন্তু, সোশ্যাল মিডিয়া সাইবার বুলিং, হয়রানি এবং অনলাইন ট্রোলিং হতে পারে, যা মানসিক স্বাস্থ্যের উপর আরও নেতিবাচক প্রভাব ফেলতে পারে।

ঘুমের ব্যাধি: শোবার আগে সোশ্যাল মিডিয়া ব্যবহার করা ঘুমের গুণমানকে নেতিবাচকভাবে প্রভাবিত করতে পারে। স্ক্রিন দ্বারা নির্গত নীল আলো ঘুমের ধরণকে ব্যাহত করতে পারে, যার ফলে ঘুমের ব্যাধি যেমন অনিদ্রা হতে পারে। তাছাড়া, সোশ্যাল মিডিয়া ব্যবহারের মনস্তাত্ত্বিক উদ্দীপনা শরীরের ঘুমানোর এবং ঘুমের জন্য প্রস্তুত করার ক্ষমতাকে হস্তক্ষেপ করতে পারে।

সাইবার বুলিং: সোশ্যাল মিডিয়া সাইবার বুলিং-এর জন্য একটি প্ল্যাটফর্মও প্রদান করতে পারে, যেখানে ব্যক্তিদের হয়রানি, অপমান বা প্রকাশ্যে লজ্জিত করা যেতে পারে। এটি দীর্ঘস্থায়ী মানসিক ক্ষতির দিকে নিয়ে যেতে পারে, যার মধ্যে হতাশা, উদ্বেগ এবং আত্মসম্মান কমে যায়।

তুলনা এবং ঈর্ষা: সামাজিক মিডিয়া তুলনা এবং ঈর্ষার সংস্কৃতি প্রচার করতে পারে। সোশ্যাল মিডিয়াতে অন্যদের হাইলাইট রিলের সাথে তাদের জীবন তুলনা করার সময় ব্যক্তিরা অপর্যাপ্ত বোধ করতে পারে, যা তাদের আত্মসম্মানে নেতিবাচক প্রভাব ফেলে। এটি নেতিবাচক মনস্তাত্ত্বিক প্রভাবের দিকে নিয়ে যেতে পারে, যেমন অপর্যাপ্ততার অনুভূতি এবং নিম্ন স্তরের সুস্থতা।

সময় অপচয়: সোশ্যাল মিডিয়ার অত্যধিক ব্যবহার একটি সময় নষ্ট করতে পারে, যা বিলম্বিত হতে পারে এবং উত্পাদনশীলতা হ্রাস করতে পারে। ব্যক্তিরা গুরুত্বপূর্ণ কাজগুলিতে ফোকাস করার পরিবর্তে তাদের সোশ্যাল মিডিয়া ফিডগুলির মাধ্যমে স্ক্রোল করতে পারে, যার ফলে দক্ষতা হ্রাস পায় এবং চাপ বৃদ্ধি পায়।

শারীরিক স্বাস্থ্য: স্ক্রীনের সামনে বসে অত্যধিক সময় ব্যয় করা একটি আসীন জীবনযাত্রার দিকে পরিচালিত করতে পারে এবং শারীরিক স্বাস্থ্যের উপর নেতিবাচক প্রভাব ফেলতে পারে, যেমন স্থূলতা এবং দুর্বল ভঙ্গি। অধিকন্তু, অত্যধিক সোশ্যাল মিডিয়া ব্যবহারের ফলে চোখের চাপ, মাথাব্যথা এবং অন্যান্য শারীরিক লক্ষণ দেখা দিতে পারে।

সামগ্রিকভাবে, অত্যধিক সোশ্যাল মিডিয়া ব্যবহার ব্যক্তির জন্য বিভিন্ন নেতিবাচক পরিণতি হতে পারে, যার মধ্যে আসক্তি, দুর্বল মানসিক স্বাস্থ্য, ঘুমের ব্যাধি, সাইবার বুলিং, তুলনা, এবং হিংসা, সময় অপচয় এবং শারীরিক স্বাস্থ্যের উপর নেতিবাচক প্রভাব রয়েছে। অতএব, এই ক্ষতিকারক প্রভাবগুলি এড়াতে সংযমভাবে সামাজিক মিডিয়া ব্যবহার করা এবং ভাল ডিজিটাল স্বাস্থ্যবিধি অনুশীলন করা অপরিহার্য।

সামগ্রিকভাবে, সোশ্যাল মিডিয়ার অনেক সুবিধা থাকলেও, অত্যধিক ব্যবহার ব্যক্তিদের জন্য বিভিন্ন নেতিবাচক ফলাফলের দিকে নিয়ে যেতে পারে। সোশ্যাল মিডিয়াকে পরিমিতভাবে ব্যবহার করা এবং ভালো ডিজিটাল হাইজিন অনুশীলন করা গুরুত্বপূর্ণ।


এই ক্যাটাগরির আরো নিউজ

ফেইসবুকে আমার নোয়াখালী