• শনিবার, ২০ এপ্রিল ২০২৪, ১২:৪৭ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম:
সোশ্যাল মিডিয়ায় সবচেয়ে বেশি সময় কাটায় যে দেশের মানুষ বঙ্গবন্ধু হাই-টেক সিটিতে বাংলাদেশের প্রথম ক্লাউড ডেটা সেন্টার: মেঘনা ক্লাউডের কার্যক্রম শুরু নোবিপ্রবির সঙ্গে তুরস্কের পামুক্কালে বিশ্ববিদ্যালয়ের সমঝোতা স্মারক (MOU) স্বাক্ষর সেনবাগে ভোর রাতে ঘরে ঢুকে স্ত্রী,কন্যা ও শাশুড়িকে কুপিয়ে জখম বেগমগঞ্জ পার্ক থেকে অস্ত্র’সহ কিশোরগ্যাংয়ের ৫সদস্য আটক এইচ এম ইব্রাহিম এমপিকে জনশক্তি ও কর্মসংস্থান মন্ত্রণালয়ের স্থায়ী কমিটির সভাপতি নির্বাচিত করায় গণসংবর্ধনা বেগমগঞ্জে বাবার জানাজা শেষে ছেলের মৃত্যু  নুর নবী টিপু বিএ (অনার্স) এমএ কে উপজেলা চেয়ারম্যান হিসেবে দেখতে চায় বেগমগঞ্জবাসী পেমেন্ট খাতের শীর্ষস্থানীয় প্রতিষ্ঠানসমূহকে সম্মাননা দিল ডিজিটাল পেমেন্টে বিশ্বের শীর্ষস্থানীয় প্রতিষ্ঠান ভিসা ট্রাস্ট সফট বিডি: বাংলাদেশে একটি বিশ্বস্ত আইটি সেবা প্রদানকারী প্রতিষ্ঠান

চাটখিলে অগ্নিকাণ্ডে নিঃস্ব ১১ পরিবারের পাশে উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান

আমার নোয়াখালী ডেস্ক
আমার নোয়াখালী ডেস্ক
আপডেটঃ : শনিবার, ৬ মে, ২০২৩
চাটখিলে অগ্নিকাণ্ডে নিঃস্ব ১১ পরিবারের পাশে উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান
চাটখিলে অগ্নিকাণ্ডে নিঃস্ব ১১ পরিবারের পাশে উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান

নোয়াখালীর চাটখিলে অগ্নিকাণ্ডে নিঃস্ব ১১ পরিবারের পাশে দাঁড়ালেন চাটখিল উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও চাটখিল উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান জাহাঙ্গীর কবির। শুক্রবার (৫ মে) দুপুরে উপজেলার পাঁচগাঁও ইউনিয়নের আবু তোরাব নগর গ্রামের অগ্নিকাণ্ডে ক্ষতিগ্রস্ত এলাকা পরিদর্শন করেন তিনি।

এ সময় ক্ষতিগ্রস্ত ১১ পরিবারকে নিজস্ব তহবিল থেকে প্রত্যেকের হাতে নগদ ১০ হাজার করে মোট ১ লাখ ১০ হাজার নগদ টাকা সহায়তা দেন জাহাঙ্গীর কবির।

জাহাঙ্গীর কবির বলেন, এলাকার যেকোনো সংকটে আমি ও আমার স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন এক্টিভ ফাউন্ডেশন অসহায়দের পাশে আছে ও থাকবে। ক্ষতির তুলনায় হয়তো এই অর্থ সামান্য। কিন্তু এই সামান্য অর্থ নিঃস্ব পরিবারগুলোকে ঘুরে দাঁড়াতে সাহস দেবে বলে আমি বিশ্বাস করি।

এসময় পাঁচগাঁও ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান সৈয়দ মাহমুদ হোসেন তরুণসহ স্থানীয় জনপ্রতিনিধি ও আওয়ামী লীগের নেতারা উপস্থিত ছিলেন।

উল্লেখ্য, গত সোমবার (১ মে) ভোররাতে উপজেলার পাঁচগাঁও ইউনিয়নের আবু তোরাব নগর গ্রামে বৈদ্যুতিক শর্ট সার্কিটের আগুনে ৭টি অটোরিকশা, ১টি ইঞ্জিনচালিত ভ্যানসহ স্থানীয় বেল্লাল হোসেনের একটি গ্যারেজ, স্থানীয় কৃষক মহিন উদ্দিনের ধানসহ একটি ঘর এবং একটি মুদি দোকান পুড়ে ছাঁই হয়ে যায়। স্থানীয় ফায়ার সার্ভিসের কর্মীরা এক ঘণ্টাব্যাপী চেষ্টা চালিয়ে আগুন নিয়ন্ত্রণ করে। এতে তাদের প্রায় ১২ লাখ টাকার ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে বলে ক্ষতিগ্রস্ত পরিবারগুলো দাবি করে।


এই ক্যাটাগরির আরো নিউজ

ফেইসবুকে আমার নোয়াখালী